বোয়ালমারী পৌরবাসী ইমরানকে মেয়র হিসেবে দেখতে চায়

শেয়ার করুন


নিজস্ব প্রতিনিধিঃ 

ফরিদপুরের বোয়ালমারী পৌরসভার সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান মো. ইমরান হোসেন। বাংলাদেশের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে উচ্চ শিক্ষা শেষ করে জনসেবক হিসেবে নিজেকে উৎসর্গ করতে রাজনীতিতে পদার্পণ করেছে এই মেধাবী তরুণ। রাজনীতিতে তার আবির্ভাব জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক অঙ্গনে উপজেলায় এক ভিন্নমাত্রা যোগ করেছে। বোয়ালমারী সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব সিদ্দিকুর রহমানের কনিষ্ঠ ছেলে ইমরান হোসেন, পিতার আদর্শিক রাজনীতির বরপূত্র হিসেবে ইতোমধ্যেই সাধারণ মানুষের সুখদুঃখে পাশে দাঁড়িয়ে নিজ অবস্থান সৃষ্টি করে নিয়েছে। বিচক্ষণ এ মেধাবী তরুণ ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য বোয়ালমারী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী। ইতোমধ্যেই তিনি পৌর ভোটারদের মনে আলাদা স্থান দখল করে নিয়েছেন। করোনা মহামারি থেকে শুরু করে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, রোগেশোকে যখনই এলাকার  সাধারণ মানুষ বিপর্যস্ত হয়েছে সেখানেই দলমত নির্বিশেষে সাহায্য সহায়তা নিয়ে হাজির হয়েছেন ইমরান হোসেন। বিনয়ী, বিচারাচারে ন্যায় পরায়ণতা, সত্যবাদীতায় এক আপোষহীন পুরুষ হিসেবে তার পিতা সিদ্দিকুর রহমানের সুনাম রয়েছে এলাকায়। পিতার সৎ গুণাবলীতে গুণান্বিত সুদর্শন মেধাবী এ তরুণ বোয়ালমারী পৌরসভাকে উন্নয়নের রোলমডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সুপরিকল্পিত পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে। ইতোমধ্যেই প্রচার, প্রচারণা, গণসংযোগ আর মানুষের দ্বারে দ্বারে ছুটে চলে এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছে সে।জনহিতকর নানা পরিকল্পনা, ঐতিহ্যবাহী  প্রচীন মফস্বল শহর বোয়ালমারী সড়ক কাঠামোর পরিবর্তন, তরুণ সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষায় খেলাধুলার পরিবেশ সৃষ্টিকরণ, প্রতিটি শিশুর শিক্ষা নিশ্চিতকরণ সহ বেশ কিছু চমকপ্রদ এবং ব্যতিক্রমী পরিকল্পনা রয়েছে তার। ইতোমধ্যে কয়েকটি দেশও তিনি ঘুরেছেন। তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে সেই সব দেশের পৌর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক গৃহীত কিছু উন্নয়ন পদক্ষেপ বোয়ালমারী পৌর এলাকায়ও বাস্তবায়নের চেষ্টা তিনি করবেন বলে জানান। এলাকার সাধারণ মানুষও মো. ইমরান হোসেনের মেয়র প্রার্থী হওয়ায় আশার আলো দেখছেন। গুণবহা গ্রামের ব্যাটারিচালিত ভ্যান চালক গিয়াস উদ্দিন জানান, সিদ্দিক চেয়ারম্যানের ছেলে মেয়র হলে আমার বিশ্বাস সে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াবে তার পিতার মতো। সে এখনই যে ভাবে মানুষের উপকারে কাজ করছে,  মেয়র হলে আরও বেশি কাজ করতে পারবে।  আমরা তাকে মেয়র হিসেবে দেখতে চাই।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *