সালথায় অবৈধভাবে মহাসড়কের দুই পাস দখল

শেয়ার করুন

সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ
ফরিদপুরের সালথায় অবৈধভাবে সড়কের দুই পাস দখল করে রেখেছে স’মিলের গাছ ব্যবসায়ীরা এদিকে, ‘স’মিলের সকল গাছ ফরিদপুর -মুকসুদপুর সড়কের উপর রাখায় যে কোন সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

সূত্র জানায়, ‘স’ মিল করতে হলে জেলা প্রশাসক, বন বিভাগ, পরিবেশ অধিদপ্তর, ফায়ার সার্ভিসসহ সরকারের বিভিন্ন দফতরের অনুমতি লাগে। কিন্তু সালথার প্রায় সকল স’মিল ব্যাবসায়ীরা নিয়ম-নীতি উপক্ষো করে গড়ে তুলেছেন ‘স’মিল। আবার রাস্তা দখল করে স’ মিলের সকল গাছ ও কাঠ রাখছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সোনাপুর, মোস্তার মোড়, ফুলবাড়িসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গড়ে তুলেছেন অবৈধ স’মিল। অবৈধভাবে গড়ে ওঠা স’মিলগুলিতে গিয়ে দেখা গেছে, ডিজেল চালিত স্যালোমেশিন দিয়ে এসব স’মিল চালাচ্ছেন। যার বিকট শব্দে আশপাশের মানুষ অতিষ্ঠ। আবার অনেকর নেই পরিবেশ অধিদপ্তর, ফায়ার সার্ভিস, বন বিভাগের ছাড়পত্র। আবার কেউ কেউ স’মিলের কোন কাগজপত্র নবায়ন করেননি। আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে এসব ব্যবসায়ীরা ক্ষমতা বলে চালিয়ে নিচ্ছেন তাদের এই অবৈধ ব্যবসা।

এদিকে, উপজেলা ফরেস্ট অফিসের তথ্য মতে সালথা উপজেলায় স’মিলের সংখ্যা প্রায় ২৪টি, এর মধ্য অধিকাংশ স’মিলের লাইসেন্স নেই, এসব অবৈধ স’মিলগুলি বন্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়নি প্রশাসন। ফলে যে যার মত গড়ে তুলছে স’মিল। তোয়াক্কা করছে না পরিবেশ অধিদপ্তরের।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ হাসিব সরকার বলেন, উপজেলার অবৈধ স’মিল মালিকদের নোটিশ করা হয়েছে। বার বার মাইকিং করে বলা হয়েছে। কয়েকটি স’মিলকে জরিমানা করা হয়েছে। ধাপে ধাপে সব অবৈধ মিলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *